‘রঙিন ক্যাম্পাস’

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২০

আবু নাঈম, আলোকচিত্রী সাংবাদিক ,সরকারি বি.এম কলেজ,বরিশাল: সত্য প্রেম পবিত্রতার আলোয় আলোকিত, দক্ষিণ বাংলার ঐতিহ্যবাহী বাতিঘর ব্রজমোহন কলেজ, ২৮ হাজার ১৩২ বা তার বেশি ছাত্র-ছাত্রীর মুখরিত ধ্বনি, হঠাৎ নিস্তব্ধ সিঁড়িগুলো জনশূন্য জানালার কার্নিশ গাঢ়ো নীল রং থেকে অন্ধকারে ছেয়ে গেছে। উল্কার গতিতে ছোটা বারান্দা স্থির, দেয়ালে “রূপসী বাংলার” কবির ছবি নিচে লেখা – বাতাসে হেলে পড়া কাশবনের মতো অক্ষর। “সুরঞ্জনা, অইখানে যেয়ো নাকো তুমি ; বোলো নাকো কথা অই যুবকের সাথে ; অপলক দৃষ্টিতে তাকানো হয়নি আর সময়- অসময়, সূর্যের কঠোর শাসনে ভরদুপুরে -ঘেমে ঘেমে অদ্ভুত এক শীতলতা নামে সারা গায়ে, বাতাসের ঢেউয়ে কাঁটাতারে আটকে যাওয়া পলিথিনের মতো , উড়তে থাকা আমার শার্ট ;এখন চার দেয়ালে বন্দি।

একটা অস্থির সময় আমরা পার করেছি। সঙ্গীত থেকে রাজনীতি, কবিতা থেকে বিজ্ঞান, চিত্রকলা থেকে চলচ্চিত্র, বন্ধ্যাত্ব সর্বগ্রাসী। কোন এক দুঃখী নদীর মত আকুল ভাবে কেঁদে চলে সেই হাজারো রঙে রঙিন ক্যাম্পাস। স্লোগানে মুখরিত সময় আটকে আছে তালাবদ্ধ লোহার শিকে।মুক্তমঞ্চে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর দেখিয়ে দেওয়া যুক্তির শাণিত চেতনা আজ আর নেই। সবকিছু হারিয়ে গেল মেঘের কালো ছায়ার মাঝে, আচ্ছন্ন রঙিন ক্যাম্পাস, তাকালেই আমার দুচোখ ভেঙে পৃথিবীর সমস্ত অশ্রু বাঁধ ভাঙা জলের মতো প্রবাহিত হতে চাইছে। আর ভাবনায় প্রত্যাশা –

একদিন মেঘ কেটে আকাশে চাঁদ উঠিবে, চাঁদের আলোয় আলোকিত হবে রঙিন ক্যাম্পাস।