তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে বার্নলেকে উড়িয়ে দিলো চেলসি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে বার্নলেকে উড়িয়ে দিলো চেলসি। ৬-০ গোলের জয় পেলো ব্লুরা । হ্যাটট্রিক করেছেন চেলসির জার্মান ফরোয়ার্ড কাই হাভের্টজ। টাকা কথা বলতে শুরু করেছে রোমান আব্রাহামোভিচের। এক দলবদলের বাজারে দুই হাজার দুশ কোটি টাকা ব্যয় করেছিলেন ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড। আশপাশ থেকে নানা ফিসফাস শোনা যাচ্ছিলো প্রতিপক্ষদের। তবে, সময় যেতেই ধীরে ধীরে বন্ধ হচ্ছে সব সমালোচনা। প্রিমিয়ারে এক লিভারপুল দুঃস্বপ্ন বাদ দিলে, এখন পর্যন্ত সদাইপত্রের ভালো ব্যবহারই করেছেন ফ্র্যাঙ্কি। লিগ কাপের লড়াইয়ে বার্নলে প্রতিপক্ষ হিসেবে কখনই সমীহ পাওয়ার মতো দল নয় ব্লুদের কাছে। তারপরও যথেষ্ট সাবধানী ছিলেন ইংলিশ কোচ। একাদশে কোন পরীক্ষা নিরীক্ষা না করে, নামিয়েছিলেন নিজের সেরাদেরই। ফলাফল, লন্ডভন্ড বার্নলে।

কিক অফের শুরু থেকে শেষ, ৪-২-৩-১ ফর্মেশনে খেলেছে চেলসি। টমি আব্রাহামকে সামনে রেখে তাকে বল যোগানের দায়িত্বটা ভাগ করে নিয়েছিলেন কাই-মৌন্ট আর হাডসন। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে এই চতুষ্টয়ের মুহূর্মুহু আক্রমণে দিশেহারা ছিলো অতিথিরা। প্রথম গোল পেতে তাই খুব বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি স্বাগতিক শিবিরকে। ১৯ মিনিটেই স্কোরশিটে নাম উঠান আব্রাহাম। পরেরটা এসেছে আরো দ্রুত। মাত্র ৯ মিনিটের ব্যবধানে। ম্যাসন মৌন্টের বাড়ানো বল থেকে লিড দ্বিগুণ করেন চেলসির জার্মান সেনসেশন কাই হাভের্টজ। দ্বিতীয়ার্ধ্বে আরো আক্রমণাত্মক হয়ে উঠে চেলসি শিবির। প্রতিপক্ষকে ছিড়েখুরে ফেলবার নেশা তখন ব্লু শিয়রে। ৪৯ মিনিটে দলকে তিন গোলের লিড এনে দেন বার্কলে। একটার পর একটা গোল, মনোবল ভেঙে দেয় বার্নলের। কোনভাবেই আর দলকে গোছাতে পারেন নি অ্যাডাম মারে।

পরের দৃশ্যপটে মূল চরিত্র শুধুই একজন জার্মান। কাই হাভের্টজ। ১০ মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে পূরণ করেন নিজের হ্যাটট্রিক। জানিয়ে দেন, কাড়ি কাড়ি পয়সা খরচ করলেও, সেটা অপাত্রে যায়নি। আর শেষ দিকে দলের গোলের পাল্লা আরেকটু ভারি করেন চেলসির বুড়ো ঘোড়া অলিভার জিরু। ৬-০ এর বড় জয় নিয়ে পরের রাউন্ডে উঠে গেলো ল্যাম্পার্ড বাহিনী।