আহা প্রেম! আহা পরকীয়া !

প্রকাশিত: মে ১৮, ২০২০

আসুন একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য তামিল সিনেমার কাহিনী শুনি….

মানুষ নিকৃষ্ট হতে হতে কোন পর্যায়ে যেতে পারে তার একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ 😠😠😠

মূল ঘটনা:
স্বামীর ঘর ছেড়ে প্রেমিকের সাথে থাকতে তাকে হত্যা করা হয়েছে এমন নাটক সাজিয়ে ফেসবুকে প্রকাশ করেছিলেন গৃহবধূ মুক্তি।
নিজেকে লাশ বানিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি, বাধ সাধলো বেরসিক পুলিশ।
প্রযুক্তির সহায়তায় নাটোর জেলা পুলিশ ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া থেকে প্রেমিক আবিদ সহ কথিত মৃত গৃহবধূ মুক্তিকে গ্রেপ্তার করে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নাটোর পুলিশ সুপারের অফিস চত্বরে এক ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, পাবনা জেলার ঈশ্বরদী এলাকার বাসিন্দা ও মেডিকেল কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি আকমল হোসেনের স্ত্রী মুক্তির সাথে ফেসবুকে প্রেম হয় ময়মনসিংহের কেবল ব্যবসায়ী আবিদের।
গত ১১ মে মুক্তি তার বাবার বাড়ি সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার কোন্দইল রওনা হন। এজন্য আকমল হোসেন নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার রাজাপুরে লেগুনায় তুলে দেন।

প্রেমিক আবিদ সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল মোড় থেকে মুক্তিকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়।
সেখান থেকেই ওই গৃহবধূ নিজেকে হত্যা করা সহ তার নিজের সাজানো লাশের ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করে। পাশাপাশি প্রেমিক আবিদকে দিয়ে ওই ছবি ও হত্যার ম্যাসেজ স্বামীর পরিবারের কাছে পাঠায়।

এই ঘটনায় ১১ মে বড়াইগ্রাম থানায় হত্যা মামলা করেন আকমল হোসেন।
এর প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে নাটোর জেলা পুলিশ ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া থেকে প্রেমিক আবিদ সহ কথিত মৃত গৃহবধূ মুক্তিকে উদ্ধার করে।
দুপুরে উদ্ধারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

ষ্টার জলসা আর জি বাংলা দেখে দেখে বাংলার নারীকূলের বুদ্ধির লেভেল দিন দিন উপরের দিকে উঠতেছে। এই ঘটনা তারই প্রমান। করোনার ভয়ও এদের দমিয়ে রাখতে পারেনি।

আহা প্রেম! আহা পরকীয়া !