আল্লু অর্জুনের ছবিতে প্লাবন কোরেশীর গান চুরি (ভিডিও )

প্রকাশিত: মে ৯, ২০২০

দক্ষিন ভারতীয় ছবি “আলা বৈকুণ্ঠপুরামুলো”তে অনুমতি ছাড়াই ব্যবহার করা হয়েছে প্লাবন কোরেশীর বিখ্যাত গান “যে পাখি ঘর বোঝে না”র সুর। প্রায় ১০০ কোটি রূপি বাজেটের এই ছবিতে অভিনয় করেছেন হালের হার্টথ্রব হিরো আল্লু অর্জুন। বিগ বাজেটের এই গানটি ইতোমধ্যে প্রায় সাড়ে চার কোটি ভিউজ স্পর্শ করেছে। বাংলাদেশে অডিও আকারে ইউটিউবে প্রকাশের পর “যে পাখি ঘর বোঝে না” গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে এবং এ পর্যন্ত সাড়ে তিন কোটি লোক গানটিতে হিট করে।

এ প্রসঙ্গে যোগাযোগ করা হলে গানচাষিখ্যাত প্লাবন কোরেশী বলেনঃ

  • আপনার “যে পাখি ঘর বোঝে না” গানটি তামিল ছবিতে নকল করে ঢোকানো হলো। ওরা আপনার পারমিশন নিয়েছে?
  • না
  • এই ব্যাপারে আপনার অভিব্যক্তটা বলুন
  • দেখুন, যারা গান করে, আমার ধারণা তারা সবাই চায় তাদের সৃষ্টি আকাশে-বাতাসে ছড়িয়ে পড়ুক। আজ আমার এই গানটিও দেশের গন্ডি পেরিয়ে ইতিহাসের পথে হাঁটছে, এটা আমার কাছে, তথা বাংলাদেশের গানপ্রিয় সকল মানুষের কাছে গর্বের ব্যাপার। আমরা বুঝতে পারছি, আমাদের সঙ্গীত বিশ্বমানের। কিন্তু একটা কষ্ট থেকেই যায়, যারা গানটি ব্যবহার করলেন, তারা এর মূল ক্রিয়েটরদের নামটা ব্যবহার করতে পারতেন। এতে তাদের এবং আমাদের সম্মান বৃদ্ধি পেতো।
  • এর আগে আপনার সুরারোপিত “ইন্দুবালা” গানটি যখন জি বাংলার সারেগামা তে প্রচারিত হয়, তখনো আপনাদেরকে অস্বীকার করা হয়েছিলো।
  • ঠিক বলেছেন। এটা নিয়ে আমাদের এখানে অনেক লেখালেখি হয়, এবং জি বাংলা কর্তৃপক্ষ তাদের ভুল স্বীকারসহ গানটিতে আমাদের নাম বসিয়ে দেয়। গানটির গায়িকা শম্পা ব্যক্তিগতভাবে আমার কাছে দুঃখপ্রকাশ করে।
  • দক্ষিণ ভারতীয় ছবিতে “যে পাখি ঘর বোঝে না” গানটির এই নামহীন প্রয়োগ নিয়ে গানটির মূল গায়ক ধ্রুব গুহ এবং সঙ্গীত পরিচালক তরিক আল ইসলামের সাথে আপনার কোনো কথা হয়েছে?
  • না
  • গানটির গীতিকার ও সুরকার হিসেবে আপনার অনুভূতি কি?
  • বিদেশীরা গান নকল করছে, আমরা তাদের কিছু লাগি না। বাংলাদেশেই আমার বহু গান এভাবে নামে-বেনামে প্রচারিত হচ্ছে। বেশ কিছু ইউটিউব চ্যানেল আমার অনুমতি না নিয়ে, আমার নাম না দিয়ে প্রচার করছে। এটা খুবই দুঃখজনক। কারো সৃষ্টিকে অস্বীকার করার মাঝে আনন্দ কিছু নেই।
  • আপনাকে ধন্যবাদ
    -ধন্যবাদ।