ঈদের আগে ২০০ কোটি টাকা বকেয়া প্রদানের দাবিতে পাবনায় আখ চাষিদের সমাবেশ

প্রকাশিত: মে ৮, ২০২০

আমিনুল ইসলাম জুয়েল(পাবনা প্রতিনিধ)
রাষ্ট্রায়ত্ব ১৫টি চিনিকলে আখ চাষিদের বকেয়া প্রায় ২০০ কোটি ঈদের আগে পাওয়ার দাবিতে বৃহস্পতিবার দুুপরে পাবনা চিনিকলের সামনে আখচাষি কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে চাষি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। চিনিকলের আখ চাষি প্রতিনিধিরা সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সমাবেশে অংশ নিয়ে তাদের ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন। গত চার মাস ধরে ঘুরে ঘুরেও টাকা না পেয়ে অনেক চাষি নিরাশ হয়ে মিল গেটে কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরে তাদের একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রী বরাবর তাদের বিভিন্ন দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি পাবনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পৌছে দেন।

পাবনা- ঢাকা মহাসড়কের পাশে চিনিকলের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও আখ চাষি সমাবেশে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ চিনিকল আখ চাষি ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ও আখচাষি কল্যাণ সমিতি পাবনা সুগার মিলস্ লিঃ এর সভাপতি আলহাজ¦ শাহজাহান আলী বাদশা ওরফে পেঁপে বাদশা, আখচাষি কল্যাণ সমিতি পাবনা সুগার মিলস্ লিঃ এর সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী ডিলু, আমজাদ হোসেন মালিথা, প্রমুখ।

ঈশ্বরদীর পাকুড়িয়া গ্রামের ৭০ বছর বয়সী আখ চাষি আব্দুল মালেক মালিথা জানান, ‘ আমি ২৫- ৩০ বিঘা আখ চাষ করি। আর চাল কিনে খাই। ১৬ মাস ধরে পরিচর্যা করে আখ পাই। অথচ সেই আখ বিক্রির টাকা পচ্ছি না। চলতি করোনা দুর্যোগে ও রমজানে টাকার প্রয়োজন হওয়া সত্ত্বেও পাচ্ছি না। সন্তানদের লেখাপড়ার চাহিদা মেটাতে আর পাওনাদারদের চাপে আমরা দিশেহারা।’

বাংলাদেশ চিনিকল আখ চাষি ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ও আখচাষি কল্যাণ সমিতি পাবনা সুগার মিলস্ লিঃ এর সভাপতি আলহাজ¦ শাহজাহান আলী বাদশা ওরফে পেঁপে বাদশা বলেন, সাংসারিক সমস্যার পাশাপশি তারা টাকার অভাবে অন্য ফসল পর্যন্ত চাষবাস করতে পারছেন না। তিনি জানান, এখন আখ চাষের পরিচর্যা করার জন্য বাড়তি টাকা দরকার হচ্ছে। অথচ এ সময়ে তারা চার মাস মাস আগে চিনিকলে আখ বেচেও টাকা পাচ্ছেন না। অর্থাভাবে তাদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে। তিনি চলতি মুজিব বর্ষে ৫০০ কোটি টাকার আপদকালীন তহবিল করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
তিনি তার লিখিত বক্তব্যে ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন।

পাবনা চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফ উদ্দিন আহমদ বলেন, পাবনা চিনিকলে প্রায় ৫ হাজার ৫ শ’ মে.টন চিনি অবিক্রিত রয়েছে। ফলে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আর এ সমস্যা সারা দেশেই। তিনি আখ চাষিদের দুরবস্থার কথা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবেন বলে জানান।

পরে আখ চাষিদের একটি প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রী বরাবর করা এসব দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি পাবনা জেলা প্রশাসক কাছে দেন।