সরিষাবাড়ীর মেয়র রুকনের আবেগঘন স্টাটাস

প্রকাশিত: মে ৮, ২০২০

ডেইলি মিররের পাঠকদের জন্য সরিষাবাড়ীর পৌর মেয়র মো. রুকুনুজ্জামান রুকনের ফেসবুক ষ্টাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল-

আমার প্রিয় পৌরবাসী / সরিষাবাড়ীবাসী,
আসসালামু আলাইকুম । আমি জানি আপনারা আমাকে অনেক ভালোবাসেন এবং আমার কষ্টে আপনারা কষ্ট পান কিন্তু আপনারা কেউই ভালো নেই এই করোনা ভাইরাসের মধ্যে আমি জানি ।

রাত শেষে দিন এবং কান্না শেষে হাসি এবং আল্লাহ তায়ালা ধৈর্য্যশীল ব্যক্তিদের সাথেই আছেন।

আমিও অনেক কষ্টে আছি । আজ আমি গৃহবন্দীর মতো, আমাকে ঘর থেকে বের হতে দিচ্ছেনা এবং আমাকে পৌরসভার স্বাভাবিক কাজ কর্মও করতে দিচ্ছে না । আমাকে হত্যার হুমকিও দেয়া হয়েছে এবং আমি বাহির হলেই আমাকে তারা হত্যা করবে।

আমার প্রশ্ন একটাই আপনাদের কাছে -আমি কি অন্যায় করেছি?

আমাকে কেনো মিথ্যা চাউল চোর বানানো হইলো?

কেনো মিথ্যা চাউল চোর বানিয়ে দল থেকে অবৈধ ভাবে বহিষ্কার করা হইলো?

অবৈধ ভাবে চাউল চোর বানিয়ে কমিশনারদের মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অনাস্হা আনা হইলো যা সংবিধান বিরোধী ?

আমাকে কেনো জোরপূর্বক ক্ষমতার অপব্যবহার করে পৌরসভা থেকে সাখাওয়াত হোসেন ( মুকুল) এর নেতৃত্বে গুন্ডা বাহিনী নিয়ে বের করে দেয়া হইলো?

শুধু তাই নয় আমার ছেলে পেলেদেরকে এবং সাংবাদিকদেরকে বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছে যেনো আমার বাড়ীতে না আসে, তারা বলেছে – আমার বাড়ীতে এবং আমার সাথে ঘুরলে এবং আমাকে নিয়ে কোনো Face book এ Status দিলে – তার পরিনতি হবে কঠিন।

আপনারা সবাই হয়তোবা জানেন যে -গত পরশুূদিন আমার নিজের সাতপোয়া গ্রামের বাস ভবনে মুকুলের নির্দেশনায় হামলা করা হয়েছিলো। তাই আমি সরিষাবাড়ী থানায় একটি জি ডি করেছি ( তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ হাসানের প্রতিনিধি) জনাব সাখাওয়াত হোসেন ( মুকুল) এর বিরুদ্ধে আমার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে।

আমার পৌরবাসীকে বলতে চাই – যুগে যুগে অনেক ক্ষমতাধর নমরুূদ / ফেরাউনের জন্ম হয়েছিলো, এরা নিজেকে আল্লাহ দাবী করেছিলো এবং মানুষকে অনেক অত্যাচার নিপীড়ন করতো, তাদের পরিনতি কেমন হয়েছিলো আপনারা সবাই জানেন – আল্লাহ তায়ালা একটি ছুট্টো লেংড়া মশা দিয়ে এই নমরুদকে মেরে ফেলেছিলেন।

আগে যারা রাজা বাদশাহ ছিলেন সবাই ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, তাদের বাড়ী ঘর সব ঘুনে ধরে গিয়েছে এবং তাদের পরিবারের বংশধর সবাই ভিক্ষা করে খায় – শুধু তাদের ধ্বংসের একটাই কারন তারা প্রজাদের অত্যাচার নিপিড়ন করতো, দাসী বান্দী বানিয়ে শারীরিক নির্যাতন করতো এবং প্রচন্ড আত্ন অহংকার ছিলো তাদের।

আমি পৌরবাসীকে আরো বলতে চাই যে – সরিষাবাড়ীর একজন ক্ষমতাসীন দলের জনপ্রতিনিধির প্রভাব খাটিয়ে একটি সিন্ডিকেট তৈরী করা হয়েছে যাতে করে আমি আর পৌরসভায় না ঢুকতে পারি এবং মেয়র পদ না থাকতে পারি এবং পৌরসভার সকল উন্নয়ন কার্য্যক্রম বন্ধ হয়ে যায় এবং লুটপাট করে খেতে পারে।

সবশেষে বলতে চাই যে – পৌরসভায় আমি যাবোই এবং পৌরবাসীকে সাথে করে নিয়েই যাবো ইনশাআল্লাহ ।

সবশেষে বলতে চাই যে -আমি সত্যের পথে আছি, আমাকে যদি মেরে ফেলা হয়ও আমি কোনো মীরজাফরের কাছে মাথানত করবো না।

আমার উত্থান পতনের একমাত্র মালিক আল্লাহ। আমি আল্লহকে ছাড়া কাউকে ভয় করিনা।

ইয়া আল্লাহ আপনি মহান এবং আপনিই সবকিছুর মালিক এবং আমি আপনার কাছেই বিচার চাইলাম।

আমাকে সবাই ক্ষমা করে দিবেন – আর হয়তোবা দেখা হবে কিনা জানিনা?

আল্লাহ আপনাদের সবাইকে ঈমানের সহিত রাখুন এবং ঈমানের সহিত মৃত্যু বরন করার তৌফিক দান করুন -আমিন।

বিঃ দ্র ঃ সরকারের (DGFI/ NSI/ DV/SB/BGB) কাছে আমি অনুরোধ জানচ্ছি যে – মাঠে সরেজমিনে সরিষাবাড়ীর পৌরসভার মেয়র আমাকে নিয়ে কারা হত্যার পরিকল্পনা করেছে এবং সরিষাবাড়ী সার্বিক বিষয়ে তদন্ত করে আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং মমতাময়ী মায়ের কাছে সকল সত্য রিপোর্ট প্রদানের জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।