শরীয়তপুরে নিষেধাজ্ঞার মধ্যে ইলিশ ধরায় ৮৪ জেলে আটক

প্রকাশিত: অক্টোবর ১২, ২০২১

শরীয়তপুরে ইলিশ প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় পদ্মা ও মেঘনা নদীতে মাছের অভয়াশ্রমে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ৮৪ জন জেলেকে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগ। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) ভোর ৫টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়।

মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পূর্ব নাওডোবা থেকে গোসাইরহাট খেজুরতলা পর্যন্ত ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ নদীপথ। এই নদীপথকেই ইলিশের অভয়াশ্রম ঘোষণা করেছে মৎস্য বিভাগ। প্রজননের এই সময়ে নদীতে সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরার অপরাধে গোসাইরহাটে ২ জন, নড়িয়ায় ১৯ জন, জাজিরায় ৫৪ জন, ভেদরগঞ্জে ৯ জন জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় আটককৃত জেলেদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিভিন্ন মেয়াদে জেল-জরিমানা করেন।

জাজিরা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সরদার গোলাম মোস্তফা বলেন, জাজিরায় বাবুরচর ও তার আশপাশের পদ্মা নদীর বেশকিছু এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এতে ৫৪ জন জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় ১১ কেজি ইলিশ মাছ ও ৩৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়।

তিনি আরোও বলেন, প্রতিদিনই এ অভিযান চলছে পদ্মা নদীতে। ইলিশের মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে মৎস্য বিভাগ।