পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনে বিসিবির আবেদন

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১

যৌথভাবে আইসিসি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য আবেদন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তবে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি এককভাবে আয়োজন করতে চায় দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে আবেদন করেছে বিসিবি। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বোর্ড মিটিং শেষে বিশ্বকাপ আয়োজনের বিষয়গুলো জানিয়েছেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

নাজমুল হাসান বলেন, ‘এককভাবে (চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আয়োজক হতে) আবেদন করেছি। কারণ এই আসর করার জন্য যে কয়টা স্টেডিয়াম দরকার সেটা আমাদের আছে। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য আমরা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যুগ্মভাবে আবেদন করেছি। ওই বিশ্বকাপের জন্য যে কয়টি স্টেডিয়াম দরকার সেটা আমাদের নেই, দুটি দেশ মিলে করা যায়। আর ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য আমরা তিন দেশ- বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান মিলে আবেদন করেছি।’

আইসিসি ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের ৮ বছরের চক্রে পুরুষদের বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট চূড়ান্ত করেছে। এ সময়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আছে দুটি ২০২৭ ও ২০৩১ সালে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে চারটি ২০২৪, ২০২৬, ২০২৮ ও ২০৩০ সালে। এছাড়া মোট ৮ দল নিয়ে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিও আয়োজন করা হবে ২০২৫ ও ২০২৯ সালে। এই আসরগুলোতে যৌথভাবে বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য আবেদন করেছে বোর্ড।

এর আগে ভারত-শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও ২০১৪ সালে এককভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করে বাংলাদেশ। ২০১১ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ ৮টি ম্যাচ আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মোট ম্যাচ হয়েছিল ৩৫টি।

অবকাঠামোর অভাবে এককভাবে যে বিশ্বকাপ আয়োজন সম্ভব না, সেটি গত জুনে বোর্ড মিটিং শেষে জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি। তবে যৌথভাবে বিশ্বকাপ ও এককভাবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আয়োজনের জন্য আবেদন করবেন বলেও জানিয়েছিলেন। সেই মোতাবেক আবেদন করেছে বিসিবি।

বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ প্রধানমন্ত্রীর সবুজ সংকেত পেয়েছে বিসিবি। নাজমুল হাসান বলেন, ‘এখানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সরকারি বিভিন্ন মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতি বা নিশ্চয়তার দরকার ছিল। আমরা আনন্দের সঙ্গে শেয়ার করছি যে আমরা এই সংক্রান্ত অনুমতি নেওয়ার যে পত্র দরকার হয় সেটার প্রথম পত্রটাই পেয়েছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে, ওনার নিজের সই করা যে, এখানে যদি কোনো টুর্নামেন্ট হয় তো সমস্ত দায়িত্ব নিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।’

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দলের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় এককভাবে বিশ্বকাপ আয়োজন করা কঠিন বাংলাদেশের জন্য। ২০২৭ ও ২০৩১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলবে ১৪ দল। ২০৩১ সাল পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আছে ৪টি। এতে অংশ নেবে ২০টি করে দল। তাই যৌথভাবে আয়োজনের দিকেই হাঁটছে বিসিবি।