প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে অষ্টমীর স্নানে উপচে পরা ভিড়

প্রকাশিত: এপ্রিল ২, ২০২০

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলেও কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদে অষ্টমী স্নান উৎসবে মিলিত হয়েছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। বুধবার (১ এপ্রিল) ভোর থেকেই বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক হাজার পুণ্যার্থী ব্রহ্মপুত্র নদের বিভিন্ন পয়েন্টে ছোট ছোট দলে অষ্টমীর স্নান উৎসবে মেতে ওঠেন। এ উপলক্ষে কোথাও কোথাও ছোটখাটো মেলাও বসেছে।

স্থানীয়রা জানান, প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা থাকার ফলে এবার পুণ্যার্থীরা মূল পয়েন্ট চিলমারী নৌবন্দরে যাননি। তারা ব্রহ্মপুত্র নদকে ঘিরে চিলমারী উপজেলার ফকিরেরহাট, পুটিমারী, জোড়গাছসহ বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তা বেষ্টনী ফাঁকি দিয়ে ছোট ছোট দলে অষ্টমীর স্নানে অংশগ্রহণ করেন।

জানা গেছে, প্রতি বছর এই দিনে দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মানুষ ৪-৫ কিলোমিটার এলাকাব্যাপী এই অষ্টমীর স্নানে অংশগ্রহণ করে। কিন্তু এবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞা থাকায় সনাতন ধর্মাবলম্বী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে চিলমারী উপজেলা প্রশাসন এই স্নান উৎসব বাতিল করে। তবে কেউ কেউ তা মানছেন না। দল বেঁধে পরিবারের লোকজন নিয়ে পাপ মোচনে পুণ্যস্নানে অংশগ্রহণ করেন।

চিলমারী উপজেলার এলএসডি মোড়ের সৌরভ রায়, সবুজপাড়া এলাকার সঞ্জয় কুমার সরকার ও উজ্জ্বল কুমার জানান, মহামারি করোনাভাইরাস ঠেকাতে দেশে যখন সবাইকে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করতে বলা হচ্ছে, তখন কিছু মানুষ সেই নির্দেশনা মানছেন না। এদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার।

এ ব্যাপারে চিলমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ বলেন, আমরা খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশের সহায়তায় বিভিন্ন জায়গায় সমবেত হওয়া মানুষদের সরিয়ে দিয়েছি। এখন বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ অবস্থান করছে।