আজও ট্রেনে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ

প্রকাশিত: জুলাই ২২, ২০২১

ঈদের দ্বিতীয় দিনেও রাজধানী ছাড়‌ছে মানুষ। ভিড় কম আর নির্ধারিত সময়ে ট্রেন ছাড়ায় অনেকটা স্বস্তিতে বা‌ড়ি যা‌চ্ছেন যাত্রী‌রা। বৃহস্প‌তিবার (২২ জুলাই) রাজধানীর কমলাপুর স্টেশনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

কমলাপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বি‌শেষ কা‌জে যারা ঢাকা ছি‌লেন, তারা বাড়ি যাচ্ছেন। আবার অনেকে ভিড়ের মধ্যে রাজধানী ছাড়তে চাননি, মূলত তারাই এখন যাচ্ছেন।

নিধার্রিত সময়ে ট্রেন আসায় এবং ছেড়ে যাওয়ায় যাত্রীদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। তাই কোনো ভিড় নেই। তবে রাজধানীতে আসা যাত্রীসংখ্যাই বেশি ছিল স্টেশনে। আগামীকাল ২৩ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ হবে, বন্ধ হয়ে যাবে সব ধরনের পরিবহন, এ বিষয়টিকে সামনে রেখে তারা ঢাকায় ফিরছেন।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের প্রবেশপথে দেখা যায়, বেসরকা‌রি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত ট্রে‌নের টি‌কিট কাউন্টারের সামনে দীর্ঘ লাইন রয়েছে। টিকিট কিনতে লাইনে দাঁড়ানো যাত্রী কাইয়ুম বলেন, পোশাক কারখানায় কাজ করি। ১৯ তারিখ পর্যন্ত কারখানা খোলা ছিল। ২০ তারিখে বাড়ি যেতে পারিনি। বড় ভাইয়ের সঙ্গে ঢাকায় ঈদ করেছি। লকডাউনের কারণে আগামী ৫ তারিখ পর্যন্ত কারখানা বন্ধ থাকবে। এতদিন ঢাকায় কী করব? তাই বাড়ি চলে যাচ্ছি।

চট্টগ্রামগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেসের যাত্রী সাইমা খাতুন বলেন, ঈদের আগেই বাড়ি যেতে চেয়েছিলাম, কিন্তু টিকিট পাইনি। তাই এখন বাড়ি যাচ্ছি। আজ ভিড় কম, ভোগান্তিও নেই।

কমলাপুর রেল স্টেশনে দায়িত্বরত এক কর্মকর্তা বলেন, ঈদের দ্বিতীয় দিনেও অনেকে বাড়ি যাচ্ছেন, তবে ভিড় তুলনামূলক কম। তবে যাওয়ার চেয়ে ফিরে আসার সংখ্যাই বেশি দেখা যাচ্ছে। করোনার সংক্রমণ রোধে কাল থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হচ্ছে। তাই আজকের পর থেকে যতদিন বিধিনিষেধ চলবে, ততদিন ট্রেনে যাত্রী বহন বন্ধ থাকবে।

পূর্বঘোষিত তারিখ অনুযায়ী আগামী ২৩ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে কঠোর বিধিনিষেধ, যা চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এ বিষ‌য়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন ঢাকা পোস্টকে বলেন, বিধিনিষেধ শিথিলের মেয়াদ আর বাড়ছে না। ২৩ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়ে চলবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এই ১৪ দিন যদি বিধিনিষেধ মেনে চলি, তাহলে সংক্রমণের চেইন ভাঙতে পারব।