জিম্বাবুয়ের পথে ঢাকা ছাড়লেন তামিম-মুশফিকরা

প্রকাশিত: জুন ২৯, ২০২১

এক টেস্ট ও তিনটি করে ওয়ানডে-টি টোয়েন্টি খেলতে জিম্বাবুয়ে সফরে গেল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আট বছর পর দেশটিতে পূর্ণাঙ্গ সফরে যাচ্ছে টাইগাররা। এ উদ্দেশে আজ মঙ্গলবার ভোরে দেশ ছেড়েছেন ক্রিকেটাররা।

করোনার সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে চলছে বেশ ব্যস্ত সূচি। ঠাসবুনটের এ সূচিতে এখন দম ফেলার ফুরসত নেই ক্রিকেটারদের। এমন এক বাস্তবতায় দাঁড়িয়েই এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সামনে মিশন জিম্বাবুয়ে। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ হয়েছে দিন দুয়েক হয়। এরই মধ্যে তামিম ইকবালদের কর্তব্যের ডাক পড়েছে জিম্বাবুয়েতে। সময়ের হিসাবে ৮ বছর পর জিম্বাবুয়ে সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

টাইগাররা দেশটিতে যাচ্ছে মোট তিনটি ধাপে। টেস্ট দল গেল প্রথম দফায়। অধিনায়ক মুমিনুল হকের নেতৃত্বে এই দল ঢাকা ছেড়েছে মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টায়। ১৮ সদস্যের টেস্ট দলের সঙ্গে অবশ্য ছিলেন না সাকিব আল হাসান। তিনি দলের সঙ্গে যোগ দেবেন সরাসরি যুক্তরাষ্ট্র থেকে।

বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের মতো ছুটিতে থাকা আরও অনেক কোচিং স্টাফ। তারাও দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তাদের দেশ থেকেই। সদ্য স্পিন বোলিং পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া রঙ্গনা হেরাথ দলের সঙ্গে যুক্ত হবেন কাতারের দোহায় ট্রানজিটে।

দেশ ছাড়ার আগে নিজ নিজ ফেসবুকে দলের হয়ে আশির্বাদ চেয়ে নিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। তামিম তার ফেসবুকে ধারাভাষ্যকার আতহার আলি খান ও তাসকিন আহমেদের সঙ্গে ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘ঢাকা এয়ারপোর্ট থেকে। একটু পরই জিম্বাবুয়ের উদ্দেশে দেশ ছাড়ছি। আমাদেরকে আপনাদের দোয়ায় স্মরণ করবেন।’ একই আবেদন ঝরে পড়েছে মুশফিকুর রহিমের লেখাতেও।

জিম্বাবুয়ে সফরের শুরুতেই বাংলাদেশের জন্য অপেক্ষায় টেস্ট ক্রিকেট। একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে। টেস্ট দলের যারা সীমিত ওভারের ফরম্যাটে নেই, তারা দেশে ফিরবেন প্রথম টেস্ট শেষেই। এরপরই রঙিন পোশাকের লড়াই। ৩ ম্যাচের ওয়ানডে লড়াইয়ের প্রথমটি হবে ১৬ জুলাই। এ লড়াইয়ে শামিল হবেন যারা, সেই দলের সদস্যরা জিম্বাবুয়ের জন্য ঢাকা ছাড়বেন আগামী ৯ জুলাই। তারপর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। যার প্রথমটি শুরু ২৩ জুলাই। এই দলের বাকি সদস্যরা যাবেন ১৬ জুলাই। প্রতিটি ম্যাচই হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে।

করোনাকালে প্রত্যেক সফরের অবিচ্ছেদ্য অংশই হয়ে গেছে কোয়ারেন্টাইন। তবে তামিমদের স্বস্তির খবর, হারারেতে বাংলাদেশ দলকে মাত্র এক দিন থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে।