জয়পুরহাটে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ: মেম্বারসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২১

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বীরনগর এলাকায় পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সোমবার (২১ জুন) রাতে ভুক্তভোগীর পরিবার বাদি হয়ে থানায় ধর্ষণের মামলা করে। মামলার পরে অভিযুক্ত উপজেলার বীরনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ্যপ্রহরী মেহেদী হাসান (২৫) কে গ্রেপ্তার হয়।

এদিকে অর্থের বিনিময়ে ধর্ষণের ঘটনাটি আপোষ করার জন্য মেয়ের পরিবারকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধামা চাপা দিয়ে ধর্ষণ কাজে সহযোগীতা করার অপরাধে স্থানীয় ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুন (৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এছাড়াও এমামলার ৩নং আসামি পাঁচবিবি উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলীমুজ্জামান বাবুল (৪৫) পালাতক আছে। মঙ্গলবার (২২ জুন) দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ জুন সন্ধ্যায় বীরনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ্যপ্রহরী মেহেদী হাসানের বাড়িতে পরীক্ষার প্রশ্ন পত্র নিতে পঞ্চম শ্রেণির ওই স্কুল ছাত্রী যায়। এ সময় বাড়িতে মা-বাবা না থাকায় ওই ছাত্রীকে পাশের ঘরে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। বাড়ি ফিরে এসে ওই ছাত্রী বিষয়টি তার মা-বাবাকে জানালে তারা স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিকে জানায়।

এদিকে ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয় ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুন ও উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলীমুজ্জামান বাবুল টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি আপোষ করার জন্য ভুক্তভোগীর পরিবারকে চাপ প্রয়োগ করে। এত রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার বাদি হয়ে থানায় ধর্ষণের মামলা করলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।