দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে শেকলে বন্দি রয়েছেন মুসলিমা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২০

দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে শেকলে বন্দি রয়েছেন, শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার মুসলিমা আক্তার। পরিবারের দাবি, সে মানসিক প্রতিবন্ধী। কারো ক্ষতি যেন করতে না পারে সেজন্যই শিকলে বেঁধে রেখে পেটের তাগিদে কাজে যেতে হয় তাদের।

এদিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন, উপজেলা প্রশাসন।

ছোট্ট একটি টিনের চালা। ভেতরে চারপাশের চারটি খুঁটিতে লাগানো আছে শেকল। তার শেষ অংশে ঝুলছে চারটি তালা।হাত ও পায়ের সঙ্গে লাগানো শেকলই যেনো ১৮ বছর বয়সী মুসলিমার সারা দিনের সঙ্গী।

শেকলের আঘাতের চিহ্ন তার হাতে-পায়ে। ঝড়বৃষ্টি যা-ই হোক, সারাদিন কাজ শেষে বাড়িতে মা না ফেরা পর্যন্ত, মুসলিমাকে এভাবেই শেকলবন্দী হয়ে ঘরের মেঝেতেই শুয়ে থাকতে হয়। চিৎকার করলেও দেখতে আসে না কেউ।

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার গুজাকুড়া গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের মেয়ে মুসলিমা। পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা বলছেন-উন্নত চিকিৎসা পেলে সুস্থ্য হয়ে উঠতে পারে এজন্য সরকারসহ বিত্তবানদের সহায়তা চেয়েছেন তারা।

এদিকে মুসলিমাকে দ্রুত সময়ের মধ্যে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা ও থাকার জন্য একটি ঘর নির্মাণ করে দেয়ার কথা জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান।

ইতোমধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমান। তিনি মুসলিমার পরিবারকে নগদ ৫হাজার টাকা ও তার ভাইয়ের জন্য একটি ভ্যানগাড়ী দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

শাকিল মুরাদ, শেরপুর প্রতিনিধি/ বাাংলাটিভি