সিমাগো র‌্যাঙ্কিং: শীর্ষ পাঁচশতে নেই বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০২১

সিমাগো ইনস্টিটিউশনস র‌্যাঙ্কিংয়ের চলতি বছরের বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকার শীর্ষ পাঁচশতটিতেও নেই বাংলাদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়।

গবেষণা, উদ্ভাবন ও সামাজিক প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে ২০০৯ সাল থেকে শিক্ষা ও গবেষণা সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে আসছে স্পেনভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি।

এ বছর নির্বাচিত তালিকার ৪ হাজার ১২৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়।

এই তালিকায় স্থান পাওয়া বাংলাদেশের ২৮টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সবার ওপরে রয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বৈশ্বিক তালিকায় যেটি রয়েছে ৫৪৮তম স্থানে এবং এশিয়া অঞ্চলের ১ হাজার ৪৩৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ২৮২তম।

২০২০ সালে বাংলাদেশ থেকে স্থান পেয়েছিল ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়।

র‌্যাংঙ্কিংয়ের এই তালিকা করতে সরকারি, স্বাস্থ্য সেবা, বিশ্ববিদ্যালয়, ব্যবসা ও অলাভজনক খাতের প্রতিষ্ঠানগুলোর ১৯টি বিষয়ের গবেষণাকে বিবেচনায় নেয় সিমাগো ইনস্টিটিউশন।

এসব বিবেচনায় এবারের সামগ্রিক তালিকায় জায়গা পেয়েছে ৭ হাজার ৫৩৩টি প্রতিষ্ঠান। এতে শীর্ষে রয়েছে চায়নিজ একাডেমি অব সায়েন্স।

সব প্রতিষ্ঠান নিয়ে বাছাই করা এ তালিকায় বাংলাদেশের ২৮টি বিশ্ববিদ্যালয়সহ মোট ৩০টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান

র‌্যাঙ্কিংয়ে স্থান করে নেওয়া ৪ হাজার ১২৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে বাংলাদেশের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৫৪৮তম স্থানে।

এবার তালিকায় থাকা ২৮ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

গত বছর এ তালিকায় থাকা দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে পাঁচে থাকা গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সবার উপরে জায়গা করে নিয়েছে।

গতবছর শীর্ষে থাকা টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (৫৫৪) এবার রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে।

গত বছরের মত এবারও তৃতীয় স্থানে রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (৫৫৫)। অবশ্য সামাজিক বিবেচনায় শীর্ষে রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

এছাড়া স্থান পেয়েছে যথাক্রমে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যৌথভাবে দশম স্থানে রয়েছে ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, এটিই সিমাগো ইনস্টিটিউশনের র‌্যাংঙ্কিয়ে দেশের শীর্ষ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়।

অন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যথাক্রমে হল- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি, ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি, ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি চিটাগাং, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, মিলিটারি ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি।

সামগ্রিক এই তালিকার বাইরে শুধু গবেষণা বিবেচনায় দেশের সেরা পাঁচ বিশ্ববিদ্যালয় হল যথাক্রমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

এই ক্যাটাগরির তালিকার সেরা আটটি বিশ্ববিদ্যালয়ও সরকারি। নবম স্থানে রয়েছে বেসরকারি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়।

আর উদ্ভাবন ক্ষেত্রে সেরা পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় হল- চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়সহ সামগ্রিক সব প্রতিষ্ঠানের তালিকায় থাকা বাংলাদেশের ৩০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ডায়রিয়া ডিজিজ রিসার্চ, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর,বি)।

প্রতিষ্ঠানটি ২০০৯ সাল থেকে প্রতিবছর এই তালিকায় বাংলাদেশের শীর্ষে রয়েছে।

তালিকার থাকা অন্য প্রতিষ্ঠানটি হলো বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর)। দেশের প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এটির অবস্থান ১৫তম।