বাইরে থেকে লোক এনে করোনা ছড়াচ্ছে বিজেপি: মমতা

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২১

ভারতে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। দৈনিক আক্রান্তের দিক থেকে সারা ভারতের মতো পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যেও প্রতিদিনই নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন রেকর্ড সংখ্যক মানুষ। এ নিয়ে বুধবার (১৪ এপ্রিল) ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি) দোষারোপ করেছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ঢোকানো হাজার হাজার লোক করোনা ছড়িয়ে দিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে।

বুধবার জলপাইগুড়ির জনসভায় মমতা বলেন, ‘বিজেপি বাইরে থেকে হাজার হাজার লোক ঢোকাচ্ছে। তারা রোগ (করোনা) ছড়িয়ে দিয়ে পালাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি কতবার বললাম, আমাকে টিকাগুলো দিন; আমি টাকা দিয়ে কিনে রাজ্যের মানুষকে বিনাপয়সায় টিকা দেবো। আমাকে দিলো না। এদের জন্যই করোনা আবার বাড়ছে। কিছুই নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না।’
পশ্চিমবঙ্গে বহিরাগত ঢোকানো নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলের অভিযোগ নতুন নয়। নির্বাচনের প্রথম দফা ভোটগ্রহণের আগে থেকেই এ বিষয়ে সরব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার ভাষায়, বাংলায় ভোট করাতে বিজেপি বিহার-উত্তরপ্রদেশ থেকে সন্ত্রাসীদের পশ্চিমবঙ্গে ঢোকাচ্ছে। মাথায় গেরুয়া রংয়ের কাপড় বেঁধে তারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করছে।

আগামী ১৭ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ হবে। তার আগে বুধবারই ছিল প্রচারণার শেষ দিন। কারণ নতুন নিয়মে ভোটগ্রহণের ৭২ ঘণ্টা আগেই প্রচারণা শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাত ৮টা থেকে মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত মমতার নির্বাচনী প্রচারণায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল দেশটির নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার সেই সময়সীমা শেষ হওয়ার পর বারাসাত ও বিধাননগরে সমাবেশ করেন তিনি।
সেদিন নির্বাচন কমিশনের নাম না করে মমতা বলেন, ‘আমার ৯৬ ঘণ্টা নষ্ট হয়ে গেছে। একদিকে ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধ এবং আরেকদিকে টানা ২৪ ঘণ্টা আমাকে প্রচার কতে দেওয়া হয়নি। তাই এই সময়ের মধ্যেই প্লাস্টার করা পা নিয়ে আমকে সবকিছু ম্যানেজ করতে হচ্ছে।’