টুঙ্গিপাড়ায় মোদির আগমনে সাজ সাজ রব

প্রকাশিত: মার্চ ১৪, ২০২১

২৭ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি হিন্দু সম্প্রদায়ের পবিত্র তীর্থভূমি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়িতে আসছেন। এ সফরে তিনি ঠাকুর পরিবারের সদস্য ও মতুয়া নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন।

নরেন্দ্র মোদির সফর ঘিরে ঠাকুরবাড়িতে নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করার পাশাপাশি হেলিপ্যাড নির্মাণ, সড়ক নির্মাণ ও সংস্কার, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে। সেই মাহেন্দ্রক্ষণের প্রতীক্ষায় আছেন গোপালগঞ্জের মানুষ।

নরেন্দ্র মোদির এ সফরকে অনেকটা রাজনৈতিক বলে মনে করছেন কেউ কেউ। পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভার নির্বাচনে মতুয়া-ভক্তদের ভোট টানতে তিনি ওড়াকান্দির ঠাকুরবাড়িতে আসছেন বলেও অনেকের ধারণা।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানো ও কাশিয়ানী উপজেলার শ্রীধাম ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়ি পরিদর্শন করার কথা রয়েছে নরেন্দ্র মোদির। ঠাকুরবাড়িতে তিনি শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ও গুরচাঁদ ঠাকুরের মন্দিরে পূজা অর্চনা করে আশীর্বাদ নেবেন। ভারতের রাষ্ট্রপ্রধানের এ সফর সফল করতে স্থানয়ীভাবে জোরেশোরে চলছে নানা আয়োজন ও সাজসজ্জা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফর সামনে রেখে ৯ মার্চ বাংলাদেশে ভারতীয় দূতাবাসের কর্মকর্তারা ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়ি পরিদর্শন করেছেন। এরপর পুলিশের ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) নূরে আলম মিনা, জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা, পুলিশ সুপার আয়শা সিদ্দিকা ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়ি পরিদর্শন করেন। এরপর থেকে পুরো ঠাকুরবাড়ি গোয়েন্দা নজরদারিতে নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নরেন্দ্র মোদিকে স্বাগত জানাতে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

এদিকে নরেন্দ্র মোদির গোপালগঞ্জ সফর নিয়ে বৃহস্পতিবার বেলা তিনটায় এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার সভাপতিত্বে এ সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. ইলিয়াছুর রহমান, কাশিয়ানী উপজেলা চেয়ারম্যান সুব্রত ঠাকুর, গোপালগঞ্জ পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী, টুঙ্গিপাড়া পৌর মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুলসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তা, বিভিন্ন সরকারি দফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ মতুয়া মহামিশনের সভাপতি মতুয়াচার্য্য পদ্মনাভ ঠাকুর বলেন, আমরা জেনেছি নরেন্দ্র মোদি ঠাকুরবাড়ির হরিমন্দিরে পূজা দেবেন। এ ছাড়া পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তিনি মতবিনিময় করবেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে বরণ করতে ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়ি প্রস্তুত বলেও তিনি জানান।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী আমাদের ঠাকুরবাড়িতে আসছেন, এটা সব মতুয়া-ভক্তের কাছে গর্বের বিষয় জানিয়ে বাংলাদেশ মতুয়া মহাসংঘের মহাসংঘাতিপতি সীমা দেবী ঠাকুর বলেন, তাকে বরণ করে নিতে ঠাকুরবাড়িতে নানা প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও উলু ও শঙ্খের ধ্বনি মাধ্যমে বরণ করে নেবেন বিশ্বের ক্ষমতাধর এ নেতাকে।

ঠাকুরবাড়ির সদস্য অমিতাভ ঠাকুর বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী আমাদের ঠাকুরবাড়িতে আসছেন, এটি আমাদের জন্য খুশির ও গর্বের বিষয়। আমরা তাকে স্বাগত জানানোর জন্য আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। তার আগমনে আমরা ধন্য হব।

ঠাকুর পরিবারের সদস্য ও গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা চেয়ারম্যান সুব্রত ঠাকুর বলেন, নরেন্দ্র মোদির ওড়াকান্দি সফরকে কেন্দ্রে করে মতুয়া ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে জাগরণের সৃষ্টি হয়েছে। নরেন্দ্র মোদির সফরের মধ্য দিয়ে আমাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে।

মতুয়াভক্ত ঘৃতকান্দি গ্রামের সাথী বাইন বলেন, ঠাকুরবাড়ি বিশ্বের দলিত সম্প্রদায়ের মতুয়া-ভক্তদের এক তীর্থভূমি। প্রতিবছর মতুয়া-ভক্তরা পুণ্যলাভের আশায় এ তীর্থভূমিতে আসেন। এখানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসবেন, এতে আমরা অনেক আনন্দিত। এ সফরে দুই দেশের আন্তরিকতা বাড়বে বলে মনে করছেন তিনি।

প্রস্তুতি হিসেবে ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়িতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে জরুরি ভিত্তিতে চারটি হেলিপ্যাড, ঠাকুর বাড়ির অভ্যন্তরে ৫০০ মিটার এইচবিবি সড়ক, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের তিলছড়া থেকে ঠাকুরবাড়ি পর্যন্ত ৮ কিমি ও রাহুথড় সড়ক থেকে ঠাকুরবাড়ি প্রবেশের জন্য ৬০০ মিটার পাকা সড়ক সংস্কার করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে কাশিয়ানী উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে দিনরাত কাজ করছেন শ্রমিকরা।

টুঙ্গিপাড়া পৌর মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশে আসছেন। তিনি টুঙ্গিপাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাবেন এবং কাশিয়ানীর শ্রীধাম ওড়াকান্দি ঠাকুরবাড়ি পরিদর্শন করবেন। এ বিষয়ে আমরা পৌরসভার পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি।

গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে আমরা প্রাথমিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি। ইতোমধ্যে আমরা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে কয়েকটি সভা করেছি।