অব্যবহৃত তরঙ্গ নিলামে বিটিআরসি

প্রকাশিত: মার্চ ৮, ২০২১

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) অব্যবহৃত তরঙ্গ নিলাম শুরু হয়েছে। এতে অংশ নিয়েছে মোবাইলফোন অপারেটর টেলিটক, গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক।

সোমবার (০৮ মার্চ) বিটিআরসি আয়োজিত মোবাইল অপারেটরদের জন্য এ নিলাম রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। এছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত আছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন, বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, কমিশনের কমিশনার, মহাপরিচালকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শুরুতে বিটিআরসির স্পেক্ট্রাম বিভাগের কমিশনার প্রকৌশলী এ কে এম শাহীদুজ্জামান স্বাগত বক্তব্য দেন। এরপর শুরু হয় নিলাম কার্যক্রম। তিনি জানান, আজ ১৮০০ ও ২১০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডের তরঙ্গের নিলাম কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। শুরুতে হবে ১৮০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডের তরঙ্গের নিলাম।

অনুষ্ঠানের প্রথম সারিতে ৪টি মোবাইল অপারেটরের প্রতিনিধিরা পৃথক ৪টি টেবিলে বসে নিলামে অংশ নিয়েছেন। এর আগে ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি সর্বশেষ তরঙ্গ নিলাম অনুষ্ঠিত হয়। বিটিআরসির পক্ষ থেকে বিভিন্ন ব্লকে ভাগ ভাগ করে নিলাম ডাকা হচ্ছে। এতে মোবাইল অপরেটরেরা তাদের প্ল্যাকার্ডের মাধ্যমে মতামত তুলে ধরেছেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বর্তমানে গ্রামীণফোনের মোট তরঙ্গ ৩৭ মেগাহার্টজ। রবি ও এয়ারটেল একীভূত হওয়ার পর রবির তরঙ্গের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৬.৪ মেগাহার্টজ। আর বাংলালিংকের তরঙ্গের পরিমাণ ৩০.৬ মেগাহার্টজ। এখন পর্যন্ত টেলিটকের ২৫.২০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ রয়েছে। প্রতিটি অপারেটরেরই বিভিন্ন ব্যান্ডে তরঙ্গ আছে। মূলত সব অপারেটর আরও বেশি তরঙ্গের জন্য আজ নিলামে অংশ নিচ্ছে।

১৮০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে সাত দশমিক চার মেগাহার্টজ তরঙ্গ মোট পাঁচটি ব্লকে নিলামে তোলা হবে। নিলামের ভিত্তিমূল্য হিসেবে ২০১৮ সালের ভিত্তিমূল্য অর্থাৎ ৩১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে।

২১০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ২০ মেগাহার্টজ ব্যবহারযোগ্য তরঙ্গ পাঁচ মেগাহার্টজ করে মোট চারটি ব্লকে নিলামে তোলা হবে। এটিরও ভিত্তিমূল্য ২০১৮ সালের হিসেবে ধরা হয়েছে। যার ভিত্তিমূল্য হলো ২৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

যদি কোনো অপারেটর ১৮০০ মেগা হার্টজ ব্যান্ডে নিলামে অংশগ্রহণ না করে, তাহলে ওই প্রতিষ্ঠান ২১০০ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে অংশ নিতে পারবে। নিলাম শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন। এছাড়া চূড়ান্ত ফলাফল জানিয়ে দেওয়া হবে।